মঙ্গলবার, জুলাই ০৫, ২০২২ | ২০ আষাঢ় ১৪২৯

বিধানসভার পর এবার পৌরসভা নির্বাচন।বিধায়ক থেকে ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে লড়ছে অভিনেতা হিরণ।


  • Logo
  • বুধবার ফেব্রুয়ারী ৯, ২০২২
বিধানসভার পর এবার পৌরসভা নির্বাচন।বিধায়ক থেকে ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে লড়ছে অভিনেতা হিরণ।
689 views

বিধানসভার পর এবার পৌরসভা নির্বাচন।বিধায়ক থেকে ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে লড়ছে অভিনেতা হিরণ।বুধবার ছিল মনোনয়নের শেষ দিন।এদিন মনোনয়ন জমা দিতে এসে ওই ওয়ার্ডের তৃণমূল প্রার্থী তারই বিপক্ষ জহর পাল কে প্রনাম করে আশীর্বাদ নিয়ে মনোনয়ন জমা দিতে যান। মনোয়ন জমা দিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে হিরন বলেন-“মানুষই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভারতীয় জনতা পার্টিকে জিতাবে, আর বিজেপি সিদ্ধান্ত নিয়েছিল হেরে যাওয়া সিট থেকে হিরন কে জিতিয়র আনব।তারা জিতিয়ে এনেছিল।তারা আবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ৩৩ নং ওয়ার্ডের হেরে যাওয়া সিট থেকে আবার জিতিয়ে আনবে।জয় মানুষের হবে।আমার ব্যক্তিগত কোন জয় নয়।আমি নমাস ধরে ওখানে থাকি।আমি যেন অনুষ্ঠানে ওনাকে নিমন্ত্রন করি।যেখানে দেখা হয়েছে সেখানে প্রনাম করেছি।যেখানে জহর বাবুকে দেখেছি সেখানে সম্মান দিয়েছি।আগে মানুষ তো তার পর রাজনীতি।
জয়ের দিকে আশাবাদি হিরণ।তিনি বলেন-“এখানে মানুষ সিদ্ধান্ত নেবেন, তারা সত্যের সাথে থাকবেন।উন্নয়নের সাথে থাকবেন।যেটা নব্বই বছরে হয়নি।সেটা ন মাসে করেছে তাদের বিধায়ক।যারা অপপ্রচার করার তারা অপপ্রচার করবে।বিরোধী পক্ষ বারবার গোল দেওয়ার চেষ্টা করবে।”
তার বিপক্ষ প্রার্থী তৃণমূলের পোড় খাওয়া নেতা জহর পাল কে “বহিরাগত বললেন হিরণ।” তিনি আরও আশাবাদি যে-“দুঃখজনক ঘটনা, জহর বাবু এত বছর ৩৫ নং ওয়ার্ড থেকে জিতে এলেন।উনাকে বহিরাগত হিসেবে ৩৩ এ দেওয়া হল।আমার মনে হয়েছিল উনার ছেলে অত্যন্ত যোগ্য।
জহর বাবুর ছেলে ছোটকা ওই ওয়ার্ডে থাকলে বেশি প্রতিদ্বন্দ্বিতা হতো।”
এদিনের মনোনয়ন ছিল বেশ তাৎপর্যপূর্ণ।

মন্তব্য:

মন্তব্য বন্ধ আছে।

অনুরূপ খবর