মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২২ | ৪ মাঘ ১৪২৮

স্ত্রীর দ্বিতীয় বিয়েতে আপত্তি জানিয়ে প্রতিশোধ নিতে বৃদ্ধা শাশুড়িকে যৌনাঙ্গে বাঁশ ঢুকিয়ে খুন জামাইয়ের


  • Logo
  • সোমবার সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১
স্ত্রীর দ্বিতীয় বিয়েতে আপত্তি জানিয়ে প্রতিশোধ নিতে বৃদ্ধা শাশুড়িকে যৌনাঙ্গে বাঁশ ঢুকিয়ে খুন জামাইয়ের
706 views

 

 

স্ত্রীর দ্বিতীয় বিয়েতে আপত্তি স্বামীর। তাই স্ত্রীর নতুন সংসার ছেড়ে ফের তার সঙ্গে ঘর বাঁধার কথা বললে স্বামী, তা রাজি হননি ওই মহিলা। কারণ যে সম্পর্ক একবার ভেঙে গিয়েছে তাকে আর জুড়বেন না তিনি। আর সেই ‘অপরাধে’র শাস্তি ভুগতে হল মহিলার মাকে। প্রাক্তন জামাইয়ের হাতে খুন হতে হল তাঁকে। এমনকি প্রাক্তন শাশুড়ির শরীরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করেও শান্ত হয়নি অভিযুক্ত। শেষে বৃদ্ধার যৌনাঙ্গে ঢোকানো দেওয়া হল আস্ত একটা বাঁশ। ঘটনাটি ঘটেছে মুম্বইয়ের ভিলে পার্লেতে, আপাততঃ গ্রেপ্তার হয়েছে ওই ব্যক্তি। এখন সে পুলিশি হেফাজতে।

বছর পাঁচেক আগে ওই মহিলার সঙ্গে বিয়ে হয় অভিযুক্তের। তবে বিয়ের পর থেকে অশান্তি লেগেই থাকত তাঁদের। স্ত্রীর অভিযোগ, তাঁকে তাঁর প্রাক্তন স্বামী শারীরিক এবং মানসিক অত্যাচারও করত, এমনকি তাঁর প্রাক্তন স্বামী নানা অসামাজিক কাজের সঙ্গেও যুক্ত ছিল। বছর তিনেক আগে এক মহিলার গলা থেকে সোনার হারও ছিনতাই করে গ্রেপ্তার হয়। বছর তিনেক জেলে থাকার পর সেপ্টেম্বরের জেল থেকে মুক্তি পেয়ে ছুটে আসে ওই ব্যক্তি। ততদিনে নতুন সংসারে শুরু করে দিয়েছেন মহিলা। এমনকি তিনি সন্তানসম্ভবাও। মহিলাকে ওই অবস্থায় দেখে অভিযুক্ত নতুন সংসার ভেঙে দেওয়ার কথা বলে সে। যদিও মহিলা ওই অনুরোধে কান না দিয়ে অভিযুক্তকে সাফ জানিয়ে দেন তার সঙ্গে কোনও সম্পর্ক রাখতে চান না তিনি।

সম্পর্ক অস্বীকার করার পরেই প্রাক্তন স্ত্রীর বাপের বাড়ি ছেড়ে চলে যায় অভিযুক্ত। পরেরদিন আবারও মহিলার বাপের বাড়িতে হানা দিয়ে তাঁর প্রাক্তন শাশুড়িকে বাড়িতে একা পেয়ে বৃদ্ধার সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়ে অভিযুক্ত। অভিযোগ, কথা কাটাকাটি চলাকালীন ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। যৌনাঙ্গে ঢুকিয়ে দেয় বাঁশ। যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকেন বৃদ্ধা। চিৎকার চেঁচামেচিতে প্রতিবেশীরা জড়ো হয়ে গেলে বিপদে পড়তে পারে, সেই আশঙ্কায় হামলা চালিয়েই এলাকা থেকে পালায় অভিযুক্ত। প্রতিবেশীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে বৃদ্ধার নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন। দেহ উদ্ধার করে পুলিশ ময়নাতদন্তে পাঠায়। কিন্তু শেষমেষ পুলিশের জালে ধরা পড়ে সে।

মন্তব্য:

মন্তব্য বন্ধ আছে।

অনুরূপ খবর