মঙ্গলবার, জুলাই ০৫, ২০২২ | ২০ আষাঢ় ১৪২৯

আজ থেকেই শুরু ভ্যাকসিন বন্টন, ভ্যাকসিন সংক্রান্ত গুজবে কান না দেওয়ার আর্জি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর


  • Logo
  • শনিবার জানুয়ারী ২, ২০২১
আজ থেকেই শুরু ভ্যাকসিন বন্টন, ভ্যাকসিন সংক্রান্ত গুজবে কান না দেওয়ার আর্জি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর
564 views

আজ থেকে শুরু হল দেশের ৪ টি জেলায় ড্রাই রান বা টিকাকরণ। দেশের পাশাপাশি এ রাজ্যেও আজ হবে করোনা ভ্যাকসিনের ড্রাই রান। বিধাননগর পুরসভার অধীন দত্তাবাদ প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র, মধ্যমগ্রাম পুরসভার অন্তর্গত আরবান প্রাইমারি হেলথ সেন্টার ফোর এবং আমডাঙা গ্রামীণ হাসপাতালে হবে টিকাকরণ প্রক্রিয়ার মহড়া। তিনি ড্রাই রানের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখে জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত কোথাও কোনও সমস্যা নেই। প্রত্যেক জায়গায় ২৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী অংশ নেবেন এই ড্রাই রানে। সকাল সাড়ে ৯টা থেকে শুরু ড্রাই রান।

ভ্যাকসিনের প্রক্রিয়াকরণের জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদেরকেই বেছে নেওয়া হয়েছে। তাদেরকে প্রথমে ওয়েটিং রুমে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখান থেকে একজনকে নিয়ে যাওয়া হবে ভ্যাকসিনেশন রুমে। ভ্যাকসিন নেওয়ার পর তাঁকে রাখা হবে অবজার্ভেশন রুমে। পাশাপাশি সম্পূর্ন প্রক্রিয়াটি কড়া নজরে থাকবে স্বাস্থ্য আধিকারিকদের। স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে খবর, ভ্যাকসিন বাজারে এলে তা কীভাবে বণ্টন করা হবে? প্রাথমিকভাবে কাদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে, ভ্যাকসিন সম্পর্কে কীভবে প্রচার করা হবে, এই দিকগুলিও খতিয়ে দেখা হবে। ভ্যাকসিনের ড্রাই রানের অর্থ, করোনা প্রতিষেধক এলে এবং তা দেওয়ার সময় কী কী প্রক্রিয়া নজরে রাখতে হবে ও কী কী চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে তা আগে থেকে বুঝে নিয়ে সতর্ক থাকা।

অন্যদিকে, করোনা ভ্যাকসিন হিসেবে দেশে সবার আগে ছাড়পত্র পেল কোভিশিল্ড। জরুরি ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই)। অক্সফোর্ডের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে ভ্যাকসিন তৈরি করেছে সিরাম ইনস্টিটিউট। পুণের এই সংস্থার দাবি প্রায় ৫ কোটি ডোজ তৈরি। মারণ ভাইরাসকে কাবু করতে দিনরাত এক করে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। চলছে প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, শুক্রবার পর্যন্ত দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১ কোটি ২ লক্ষ ৮৬ হাজার ৭০৯। শুক্রবারই কোভ্যাকসিন ও আমেরিকার ফাইজারকে পিছনে ফেলে, ভারতের সবার আগে ছাড়পত্র পেল অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি ভ্যাক্সিন। শনিবার থেকেই দেশজুড়ে শুরু হয়েছে করোনা
-ভ্যাকসিনের ট্রায়াল রান। বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কথায় ইঙ্গিত মিলেছিল যে, ভ্যাকসিন দ্রুত আসতে চলেছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে খবর, ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন স্বাস্থ্যকর্মী ও করোনাযোদ্ধারা। তারপর দেশজুড়ে হবে গণ টিকাকরণ।

ভ্যাকসিন নিয়ে আশার খবর শুনিয়েছে ভারতে কোভিশিল্ড প্রয়োগ ও উৎপাদনের দায়িত্বে থাকা সিরাম ইনস্টিটিউট। সংস্থার সিইও আদর পুণাওয়ালা জানিয়েছেন, ভ্যাকসিনের ৪ থেকে ৫ কোটি ডোজ তৈরি। জুলাইয়ের মধ্যে ৩০ কোটি ভ্যাকসিন তৈরির লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। কোভিশিল্ড এই ছাড়পত্র পেলেও, আরও কয়েকটি সংস্থার তৈরি ভ্যাকসিন এখনও অনুমোদনের অপেক্ষায়। আমেরিকায় অনুমতি পেলেও ভারতে এখনও পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু করেনি ফাইজার। রাশিয়ার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে তৈরি স্পুটনিক ভি-র তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে ভারতে। ভারত বায়োটেক এবং আইসিএমআরের তৈরি কোভ্যাকিসনের তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে দেশে।

মন্তব্য:

মন্তব্য বন্ধ আছে।

অনুরূপ খবর