মঙ্গলবার, জুলাই ০৫, ২০২২ | ২০ আষাঢ় ১৪২৯

এই বছরেই শেষ হবে করোনা মহামারী? জবাব দিলেন WHO-এর মুখ্য বিজ্ঞানী.


  • Logo
  • বৃহস্পতিবার ফেব্রুয়ারী ২৪, ২০২২
এই বছরেই শেষ হবে করোনা মহামারী? জবাব দিলেন WHO-এর মুখ্য বিজ্ঞানী.
365 views

নতুন আশা :টানা তিন বছর গোটা বিশ্বে তাণ্ডব করছে করোনাভাইরাস। কবে শেষ হবে মহামারী? কবে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারবেন সাধারণ মানুষ? এবার এই প্রশ্নের জবাব দিলেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখ্য বিজ্ঞানী সৌমা স্বামীনাথন। কিছুটা আশার কথা শুনিয়েছেন তিনি।

এই বছরেই কি শেষ হবে করোনা মহামারী?
এই প্রশ্নের জবাবে WHO-এর এই বিজ্ঞানী বলেন, “আমরা করোনা মহামারী প্রত্যক্ষ করেছি, ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করেছি। এই সংক্রামক ভাইরাসের প্রকোপ শেষ হবে ঠিকই, কিন্তু সেক্ষেত্রে সময় লাগতে পারে। অনেকে ভাবছেন, এই বছরের মধ্যেই করোনা অতিমারি শেষ হবে। অবশ্যই স্বাস্থ্যের উপর যে প্রভাব বিস্তার করছে করোনাভাইরাস তা অনেকাংশে কমবে। কিন্তু, এখনই পাকাপাকিভাবে এই ভাইরাসের হাত থেকে মুক্তি নয়। তবে ভাইরাসের সঙ্গে সহাবস্থান আমরা শিখে যাব। সমাজ এবং অর্থনীতির উপর এই ভাইরাসের বিস্তর প্রভাব পড়তে চলেছে।”করোনা পরবর্তী সময় নিয়ে সৌমা…
২০১৯ সালের আগে মুখে মাস্ক ছাড়া দিব্বি ঘুরে বেড়ানো যেত। লকডাউনের বিষয়ে স্বপ্নেও আন্দাজ করতে পারেননি কেউ। কিন্তু, করোনাভাইরাসের একের পর এক স্ট্রেনের জেরে রীতিমতো জেরবার সাধারণ মানুষ। কোভিডের সাম্প্রতিকতম স্ট্রেন ওমিক্রনের পরেও করোনাভাইরাসের আরও ভ্যারিয়্যান্ট সামনে আসতে পারে, জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। সেক্ষেত্রে কী প্রভাব পড়বে সমাজের উপর। সৌমা স্বামীনাথন জানাচ্ছেন, অনেক ভালোভাবে পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রস্তুত আমরা। তবে সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরে থাকতে হবে। এমনকী, সাধারণ জ্বর, সর্দি, কাশি হলেও মাস্ক পরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

ফিরে দেখা WHO প্রধানের বক্তব্য…
গত বছর ৩১ ডিসেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান Tedros Adhanom Ghebreyesus বলেছিলেন, “২০২২ সালে করোনা মহামারীর ইতি হতে পারে বলে আশাবাদী তিনি।” Tedros একটি বিবৃতিতে বলেছিলেন, “যদি আমরা একসঙ্গে উদ্যোগী হই সেক্ষেত্রে ২০২২ সালেরই করোনা মহামারী শেষ হতে পারে।”

তিনি আরও বলেছিলেন, “বর্তমানে আমাদের হাতে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য একাধিক হাতিয়ার রয়েছে। সকলের কাছে ভ্যাকসিন পৌঁছে দিতে হবে। সকলের কাছে সুযোগ সুবিধা পৌঁছে না দিলে কখনই এই অতিমারির মোকাবিলা সম্ভব নয়। এই বৈষম দূর হলেই মহামারী মোকাবিলা সম্ভব।” বিশ্বের অনুন্নত দেশগুলির হাতে টিকা তুলে দেওয়ার কথা বলেছিলেন তিনি। বুস্টার ডোজ দেওয়ার সেই মুহূর্তেই কোনও প্রয়োজন ছিলেন না, জানিয়েছিলেন WHO প্রধান।

মন্তব্য:

মন্তব্য বন্ধ আছে।

অনুরূপ খবর